নিজে Website তৈরি করে টাকা ইনকাম করার সঠিক গাইড 2022

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ। অনলাইনে, কিভাবে নিজের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে টাকা ইনকাম করতে হয়? এ বিষয় নিয়ে আজকে আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব। যদিও বিষয়টা বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ লোকেরাই জানে। তবে টেকটিউনস আমার জানামতে অনেকেই, যারা এই বিষয়ে নতুন তাদের জন্য আমাদের এই আর্টিকেল।

তাই দয়া করে যারা এ বিষয়ে এক্সপার্ট তারা বাজে মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন। যারা কিভাবে একটি নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম করা যায়? নিজে নিজে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করতে হয়? আজকেরে আর্টিকেলে আমরা এই বিষয় নিয়ে step-by-step আলোচনা করব। তো চলুন বন্ধুরা এখনই জেনে নিই, নিজে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে কিভাবে ইনকাম করা যায়?এ বিষয়ে বিস্তারিত!

ওয়েবসাইট জিনিসটা আসলে কি?

ওয়েবসাইটঃ দেখুন টেকটিউনস তে যারা নিয়মিত ভিজিট করেন, তাদের কাছে হয়তবা এ বিষয়টি একেবারেই নতুন নয় তাই না! তবুও আমি এই বিষয় নিয়ে আপনাদেরকে শুরু থেকে একেবারে শেষ পর্যন্ত জানানোর চেষ্টা করব। ওয়েবসাইট হল একটি প্ল্যাটফর্ম। ধরুন আপনি ফসল ফলাতে চাচ্ছেন, এখন এই ফসল ফলাতে নিশ্চয়ই আপনার প্রয়োজন হবে একটি জায়গা। এবং এই জায়গাতে আপনি বিভিন্ন ধরনের জিনিসগুলো ব্যবহার বা প্রয়োগ করে,
আপনি কিন্তু সঠিক ভাবে ফসল ফলাতে পারবেন তাই না! এদিকে ওয়েবসাইট জিনিসটাও ঠিক এমনই। এই ওয়েব সাইটে বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট সেটা হতে পারে ভিডিও অথবা আর্টিকেল। আবার হতে পারে বিভিন্ন ধরনের ফটো ইমেজ তাছাড়া আরও অনেক ধরনের নানা কিছু হতে পারে। টেকটিউনস আপনি যেমন আমার এই আর্টিকেলটি পড়ছেন। তেমনি ভাবে একটি ওয়েবসাইট এর গুনাবলী এমনই হয়ে থাকে।

টেকটিউনস ও খুবই জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম অনলাইনে। যদিও টেকটিউনস সম্পর্কে আপনাদের এখন কিছু না বললেও বিস্তারিত জানেন। একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করে আয় করার ক্ষেত্রেও, সঠিকভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। ফসল ফলাতে যেমন একটা জিনিসের প্রয়োজন হলে হয়না। তেমনি ভাবে অন্যদিকে আপনার একটি ওয়েবসাইটের জন্য বিভিন্ন ধরনের জিনিস প্রয়োজন হয়। কমপ্লিট ভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সহজে যে কেউ চাইলে ইনকাম করতে পারে।

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় ?

ওয়েবসাইট তৈরিঃ বর্তমান এই সময়ে অনলাইনে বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করে সহজে যে কেউ চাইলে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারে। এমনকি আপনিও চাইলে এই টেকটিউনস মত একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন সহজেই। টেকটিউনস কিন্তু প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর আসে, যার কারণেই এই প্লাটফর্মে মানুষ সবাই চিনে এবং জনপ্রিয়। আর এখনকার সময়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য অনলাইনে,

অনেক ধরনের প্লাটফর্ম রয়েছে। হ্যাঁ ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আলাদা আলাদা খুবই জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম পাওয়া যায়। বর্তমানে একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম এর নাম হলো ওয়াডপ্রেস। ওয়ার্ডপ্রেসে যেকোনো ধরনের নিজের মনগড়া ইচ্ছামত ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব। যদিও আরো অনেক ধরনের প্লাটফর্ম রয়েছে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য, তবে অন্যান্য প্লাটফর্মের চেয়ে ওয়াডপ্রেস প্লাটফর্ম একটু ভিন্ন অন্যরকম। যে কেউ চাইলেই ওয়ার্ডপ্রেসে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারবে সহজে।

ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন?

ওয়েবসাইট তৈরীঃ আপনি যদি একটি কমপ্লিট ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহলে, নানা ধরনের জিনিস আপনার প্রয়োজন হবে। যদিও কি কি জিনিস প্রয়োজন হবে এটা নির্ভর করে সেই প্ল্যাটফর্ম এর উপরে, যেখানে আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাচ্ছেন। ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আরও একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট বা প্লাটফর্ম হল ব্লগার। ব্লগার দিও আপনারা বেশ ভালো ওয়েবসাইট তৈরি করতে সক্ষম হবেন।

এদিকে ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য দারুণ জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। কিন্তু আপনি যদি ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেসে তৈরি করেন তাহলে, আপনার অনেক জিনিস প্রয়োজন হবে পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য। অন্যদিকে ব্লগারের মাধ্যমেও ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব। তবে ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য তেমন কিছু প্রয়োজন হয় না। তো চলুন এবার আমরা জানি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য সাধারণত যা যা প্রয়োজন হয় সেটা।

১. একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য প্লাটফর্ম প্রয়োজন হবে। ( যেখানে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন)

২. ওয়েবসাইটের কাজ করার জন্য বা ওয়েবসাইট সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য, অবশ্যই ওয়েবসাইটের জন্য একটি থিম প্রয়োজন হবে।

৩. ওয়েবসাইটের জন্য বা ওয়েবসাইটের অবশ্যই হোস্টিং প্রয়োজন হয়। হোস্টিং ছাড়া ওয়েবসাইটের স্থান বা জায়গা থাকেনা।

৪. ওয়েবসাইটের জন্য সাধারনত ডোমেইন প্রয়োজন হয়, কেননা ডিফল্ট সর্বপ্রথম যে ডোমেইন আপনাকে দেওয়া হবে, সেটার নাম আপনার এবং অন্য কারো পছন্দ হবে না। যেমন techtunes.tech ওয়েবসাইটের নামটি কত সুন্দর তাই না।

৫. সাধারণত উপরোক্ত জিনিস গুলো দ্বারা সহজেই একটিসাধারণত উপরোক্ত জিনিস গুলো দ্বারা সহজেই একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব। যদিও আমি আগেই বলেছি এক ধরনের প্লাটফর্মে এক এক রকম জিনিস প্রয়োজন হয়।

তো বন্ধুরা আশাকরি আপনারা এই বিষয়ে ক্লিয়ার ধারণা পেয়ে গেছেন যে, সাধারণত একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন হয় সেটা। যাইহোক এতক্ষণ আমরা ওয়েবসাইট কি ওয়েবসাইটের কাঠামো কি হবে? ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন হয়? এই বিষয়বস্তুগুলো নিয়ে আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন। এখন চলুন আমরা জেনে নিই যে, ওয়েবসাইট থেকে সহজে কিভাবে ইনকাম করা যায় সেটা!

কিভাবে ওয়েবসাইট থেকে বা তৈরি করে ইনকাম করতে হয়?

টাকা আয়ঃ আপনি যখন একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তখন, আপনার ওয়েবসাইট ইনকাম শুরু করার জন্য। অবশ্যই কোন একটি মাধ্যম নিয়ে কাজ করতে হবে যেটাতে আপনি ইনকাম করতে চাচ্ছেন। বেশিরভাগ লোকেরা ওয়েবসাইটে আর্টিকেল পাবলিশ করে, ওয়েবসাইটের অনুমোদন নিয়ে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করে। যদিও ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আরো অন্যান্য মাধ্যমে পাওয়া যায়।

তবে আপনারা চাইলে কিন্তু গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট অ্যাড করে, ইনকাম করতে পারেন সহজে। এখন হয়তো বা অনেকে বলতে পারেন যে, কিভাবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করা যায়? এবং টাকা কিভাবে তোলা যায়? এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান তাই না! বন্ধুরা এই বিষয়বস্তুগুলো নিয়ে যদিও আগে আমি আর্টিকেল পাবলিশ করেছিলাম। তবে আপনারা যদি আর্টিকেলটি মিস করে থাকেন তাহলে অবশ্যই বিস্তারিত জানার জন্য, আমার প্রোফাইলের আর্টিকেল গুলো দেখতে পারেন। এখন চলুন সংক্ষিপ্ত আকারে এগুলো জেনে নিন!

গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায়?

ইনকামঃ আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে, আপনার ওয়েবসাইটটি রিভিউ এর জন্য কিছু আর্টিকেল লিখে জমা দিন। যদিও গুগল এডসেন্সের টার্ম এন্ড কন্ডিশন অনুযায়ী সবকিছু ঠিক থাকলে, আপনার ওয়েবসাইটটি এপ্রুভ করা হবে নতুবা, আপনার ওয়েবসাইটটি রিজেক্ট হতে পারে। যদি আপনার ওয়েবসাইটকে অ্যাপ্রুভ হয়ে যায় তাহলে, আপনারা গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট এ বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন বসাতে পারবেন।

এভাবে করে কিন্তু আপনারা চাইলেই বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন কাজে লাগিয়ে, মানে আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন শো করে টাকা আয় করতে পারেন। আপনারা সরাসরি এডসেন্স প্লাটফর্মে গিয়ে আবেদন করতে পারেন আপনার ওয়েবসাইটের। তো চলুন বন্ধুরা এবার আমরা সংক্ষিপ্ত আকারে জেনে নেওয়ার চেষ্টা, করি গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা উঠানো বা উত্তোলন করতে হয়?

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন যেভাবে?

টাকা উত্তোলনঃ আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন করতে চান তাহলে, অবশ্যই আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্ট এড্রেস ভেরিফাই করতে হবে প্রথমে। গুগল এডসেন্স মাত্র 10 ডলার হলেই একটি চিঠির মাধ্যমে, আপনার একাউন্ট এড্রেস ভেরিফাই করার সুযোগ দেয়। তাই আপনারা চাইলেই 10 ডলার আপনার একাউন্টে যোগ করে, টাকা উত্তোলন করে নিতে পারবেন সহজে।

যখন আপনার একাউন্টি ভেরিফাই হয়ে যাবে অর্থাৎ এড্রেস ভেরিফাইড। তখন সাথে সাথে কিন্তু আপনার টাকা একাউন্টে পাঠিয়ে দিবে না। গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উত্তোলন করার জন্য আপনার অ্যামাউন্ট আরো বাড়াতে হবে। হোয়াটসঅ্যাপ আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে সর্বমোট 100 ডলার হলে, আপনারা টাকা উত্তোলন করে নিতে পারবেন সহজে। সাধারণত 100 ডলার হলেই গুগোল নিজে আপনার ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে 💸 টাকা পাঠিয়ে দেয়।

আর্টিকেল সম্পর্কিত শেষ কথা?

তো বন্ধুরা আজকে আমরা, নিজের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়? এই বিষয়বস্তুগুলো নিয়ে ধারণা বিস্তারিত দেওয়ার চেষ্টা করেছি! যদিও শুরু থেকে একেবারে শেষ পর্যন্ত বলা অনেক শ্রমের ব্যাপার! তবে আমি সংক্ষিপ্ত আকারে হলেও শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বলার চেষ্টা করেছি। আর্টিকেল সম্পর্কিত কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থাকলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না। ভালো থাকুন আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ।

আমার সাইটঃ আর কে রায়হান

Add Comment

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুনলাইক ফেসবুক
+ +