নকিয়া ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন তৈরি করছে লাভা

ভারতীয় হ্যান্ডসেট নির্মাতা লাভা ইন্টারন্যাশনাল নকিয়া ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন উৎপাদন শুরু করেছে। এক সময়ের আইকনিক ফোন নির্মাতা নকিয়ার প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফিচার ফোন ও স্মার্টফোন বাজারজাত করছে ফিনল্যান্ডভিত্তিক এইচএমডি গ্লোবাল। স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে চুক্তির আওতায় এবার নকিয়া ব্র্যান্ডের ফোন তৈরি করছে লাভা।

শুধু তা-ই নয়; স্মার্টফোনের গুরুত্বপূর্ণ বাজার ভারতে কো-ব্র্যান্ডেড স্মার্টফোন উন্মোচনে টেলিযোগাযোগ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে লাভা, যা সম্ভব হলে দেশটিতে অনেক সাশ্রয়ী দামে ফোরজি ডিভাইস সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলে দাবি করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে এমন তথ্য জানিয়েছে ইটি টেলিকম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, শুধু নকিয়া ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনই নয়; ভারতে মটোরোলা ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন তৈরির জন্য চুক্তিতে পৌঁছাতে কাজ করছে লাভা। ভারতে সাশ্রয়ী দামে কো-ব্র্যান্ডেড স্মার্টফোন উন্মোচনে এরই মধ্যে একটি টেলিযোগাযোগ সেবাদাতাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে আলোচনায় বসেছে প্রতিষ্ঠানটি।

পাশাপাশি ভারতের শীর্ষ তিন টেলিযোগাযোগ সেবাদাতার সঙ্গে চুক্তির আওতায় কো-ব্র্যান্ডেড স্মার্টফোন উন্মোচনের পরিকল্পনা নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ভারতের টেলিযোগাযোগ সেবাদাতাদের মধ্যে সাশ্রয়ী দামে নিজেদের গ্রাহকদের হাতে স্মার্টফোন পৌঁছানোর প্রবণতা বেড়েছে। এটি মূলত শুরু করেছিল ভারতীয় ধনকুবের মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও ইনফোকম। এরই মধ্যে গুগলের সঙ্গে চুক্তির আওতায় নিজস্ব ব্র্যান্ডের ফোরজি ফিচার ফোন উন্মোচন করেছে জিও।

জিও ফোন সিরিজ তৈরির কাজ করেছে ফ্লেক্স নামে একটি ডিভাইস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। ভারতী এয়ারটেলও নিজস্ব ব্র্যান্ডের সাশ্রয়ী ফোরজি সমর্থিত স্মার্টফোন উন্মোচনে ডিভাইস নির্মাতাদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে। এক্ষেত্রে লাভার টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে মিলে কো-ব্র্যান্ডেড ফোরজি স্মার্টফোন উন্মোচনের উদ্যোগ সাফল্যের মুখ দেখবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ভারতীয় প্রতিষ্ঠান হলেও চীনে ডিভাইস উৎপাদন করে আসছে লাভা। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের স্থানীয় উৎপাদন জোরদারে দেশী ও বিদেশী প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রণোদনা দেয়ার সুবিধার আওতায় এখন উৎপাদন কার্যক্রম চীন থেকে ভারতে সরিয়ে নিতে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

শুধু উৎপাদন কার্যক্রমই নয়; আগামী ছয় মাসের মধ্যে নিজেদের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আরঅ্যান্ডডি) কার্যক্রমও চীন থেকে নিজ দেশে সরিয়ে নিতে কাজ করছে লাভা।

ভারত সরকার স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনকে উৎসাহিত করছে। এরই অংশ হিসেবে প্রডাকশন লিংকড ইনসেনটিভ (পিএলআই) বা স্থানীয়ভাবে পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে আর্থিক প্রণোদনার পাশাপাশি অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

পিএলআই সুবিধার আওতায় ডিভাইস উৎপাদন এবং আরঅ্যান্ডডি কার্যক্রম স্বদেশে স্থানান্তর করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। একই সুবিধার আওতায় অ্যাপল নিজেদের পণ্য উৎপাদনের এক-পঞ্চমাংশ ভারতে স্থানান্তরে কাজ শুরু করেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরেই চীন থেকে ভারতে ডিভাইস উৎপাদন কার্যক্রম স্থানান্তরের জন্য ৮০ কোটি রুপি বিনিয়োগ করবে লাভা। এছাড়া আগামী পাঁচ বছর ধাপে ধাপে প্রতিষ্ঠানটি ৮০০ কোটি রুপি বিনিয়োগ করবে।

এ বিষয়ে লাভার চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হরি ওম রাই বলেন, আমরা খুবই আগ্রহের সঙ্গে আমাদের সম্পূর্ণ মোবাইল আরঅ্যান্ডডি, ডিজাইন ও উৎপাদন কার্যক্রম চীন থেকে স্বদেশে স্থানান্তরের কাজ শুরু করেছি। আমরা আশা করছি পুরো প্রক্রিয়া ঠিকঠাকভাবে সম্পন্ন হবে।

তিনি বলেন, ভারত সরকারের প্রণোদনার কারণে বৈশ্বিক বাজারে কার্যক্রম জোরদারে আমাদের যে উৎপাদন সক্ষমতার ঘাটতি ছিল তা পূরণ হবে। যে কারণে আমরা আমাদের সম্পূর্ণ কার্যক্রম ভারতে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

কার্যক্রম স্থানান্তর প্রক্রিয়া একটি নির্দিষ্ট সময়ের ওপর নির্ভর করছে। পাশাপাশি আমাদের পণ্যের চাহিদা এবং বিশ্বজুড়ে আমরা কতটা বাজার দখলে সক্ষম হচ্ছি তার ওপরও নির্ভর করছে।

চীনে ডিভাইস উৎপাদন ফ্যাসিলিটি আউটসোর্স করা হলেও ডিজাইন এবং আরঅ্যান্ডডি ফ্যাসিলিটি লাভার নিজস্ব ছিল। প্রতিষ্ঠানটির দাবি, ভারতে কার্যক্রম স্থানান্তরের মাধ্যমে স্থানীয় ও রফতানি চাহিদা পূরণের মতো সেটআপ এবং সক্ষমতা তাদের রয়েছে

Add Comment

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুনলাইক ফেসবুক
+ +