স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে আসছে ইলেকট্রনিক ট্যাটু

বিল গেটস ঘোষণা দিয়েছেন, স্মার্টফোনের বিকল্প আসছে। নতুন ধরনের এক প্রযুক্তির ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন তিনি, যা বাজার থেকে স্মার্টফোনকে হটিয়ে দিতে সক্ষম হবে। নতুন ওই প্রযুক্তির নাম ’ইলেকট্রনিক ট্যাটু’।

ইলেকট্রনিক ট্যাটু

বিল গেটস জানিয়েছেন, কেওটিক মুন কোম্পানির নতুন প্রযুক্তি ইলেকট্রনিক ট্যাটু একটি বায়োটেকনোলজি ভিত্তিক কৌশল। যার মাধ্যমে মানবদেহের তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করা যাবে।

স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে আসছে ইলেকট্রনিক ট্যাটু

মূলত এই ট্যাটুটি প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা ও ক্রীড়া তথ্যের ডাটা সংগ্রহ এবং সংরক্ষণ করবে। এই তথ্যের মাধ্যমেই রোগপ্রতিরোধ এবং নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন তিনি। এছাড়া এই ট্যাটুর মাধ্যমে শারীরিক কর্মক্ষমতাকে উন্নত করাও সম্ভব হবে।

তবে এখনও এই ইলেকট্রনিক ট্যাটুটি নিয়ে বিস্তর গবেষণা চলছে। কিন্তু নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, এটি ত্বকে অস্থায়ীভাবে প্রয়োগ করা হবে। কাজ করবে ছোট সেন্সর ও ট্র্যাকারের সাহায্যে। যা একটি বিশেষ কালির মাধ্যমে তথ্য পাঠাবে এবং গ্রহণ করবে।

Read More: ইন্টারনেটের উন্নত সেবায় গ্রামীণফোনের নতুন ডিভাইস

ইলেকট্রনিক ট্যাটুর প্রাথমিক বাস্তবায়নকে যথেষ্ট বলে মনে করছেন না বিল গেটস। ভবিষ্যতে এই ডিভাইস আজকের স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান তিনি।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি হলিউড মুভিতে দেখা গেছে, কল করতে, বার্তা পাঠাতে বা ঠিকানা দেখতে ইলেকট্রনিক ট্যাটুর ব্যবহার।

কিন্তু বিল গেটসের এই স্বপ্ন কবে সফল হবে এখনো তা বলা যাচ্ছে না। গেটস ও তার দল নতুন এই ডিভাইসটির ব্যবহার সবার জন্য উন্মুক্ত করার একটি সহজ উপায় খুঁজছেন।

Add Comment

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুনলাইক ফেসবুক
+ +