মাইক্রোসফট অফিসে বিশাল পরিবর্তন আসছে

মাইক্রোসফট অফিসে বিশাল পরিবর্তন আসছে

১৯৯০ সালে মাইক্রোসফট অফিস প্রথম রিলিজ করা হয়। উইন্ডোজের পর মাইক্রোসফটের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রোডাক্ট হলো এই মাইক্রোসফট অফিস, যা ব্যবহার করেনি এমন মানুষ হয়ত খুঁজেই পাওয়া যাবেনা। ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্ট ও আউটলুক ইত্যাদি মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপগুলো অগণিত মানুষের দৈনন্দিন সঙ্গী।

এবার বদলে যাচ্ছে মাইক্রোসফট অফিস। সফটওয়্যার সিরিজটির নাম দিয়েই পরিবর্তন শুরু। মাইক্রোসফট অফিসের নতুন নাম হবে “মাইক্রোসফট ৩৬৫”। এই পরিবর্তন প্রথমে Office.com এর মাধ্যমে ব্যবহার্য অফিস অ্যাপগুলোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে, যা নভেম্বর মাস থেকে শুরু হবে।

এরপর ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস থেকে উইন্ডোজ ১০ ও উইন্ডোজ ১১ এর বিল্ট-ইন অফিস অ্যাপ, আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড এর অফিস মোবাইল অ্যাপের নাম পরিবর্তন হবে। আপডেট হওয়ার পর অ্যাপগুলোতে নতুন মাইক্রোসফট ৩৬৫ ব্র্যান্ডিং ও নতুন লোগো দেখা যাবে। অনেকটা আগের মত দেখতে হলেও নতুন অফিস লোগো এর O দেখতে কিছুটা ভিন্ন।

মাইক্রোসফট এর FAQ পেজ অনুসারে ওয়ানড্রাইভ ও মাইক্রোসট টিমস সহ আরো অনেক কিছু ও অফিস অ্যাপগুলোকে একই ব্র্যান্ডিং এর নিচে নিয়ে আসা হবে। এছাড়া মাইক্রোসফট আরো জানিয়েছে যে অফিস ব্র্যান্ডিং আরো বেশ কিছুদিন দেখা যাবে।

বিদ্যমান অফিস ৩৬৫ একাউন্টগুলো আপাতত রিনেম করা হবেনা। আবার মাইক্রোসফট আগের মত ওয়ার্ড, এক্সেল ও অন্যান্য অফিস অ্যাপ অফিস ২০২১ এর মত বিক্রি করবে। পূর্বে অফিস অ্যাপস এর একাধিক লাইসেন্সড ভার্সন কিনতে পাওয়া গেলেও মাইক্রোসফট ৩৬৫ পরিবর্তন কারণে এই বিষয়ে কি পরিবর্তন আসবে তা এখনো দেখার বিষয়।

অফিস হলো মাইক্রোসফট এর লেটেস্ট প্রোডাক্ট যার নামে “মাইক্রোসফট” যোগ হয়েছে। এর আগে উইন্ডোজ এর বিল্ট-ইন ম্যালওয়্যার স্ক্যানার, উইন্ডোজ ডিফেন্ডার এর নাম ২০১৯সালে এসে পরিবর্তন করে রাখা হয় মাইক্রোসফট ডিফেন্ডার। ধারণা করা যাচ্ছে মাইক্রোসফট এর অন্যান্য প্রোডাক্টেও এই পরিবর্তন দেখা যাবে শীঘ্রই।

তবে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম বা এক্সবক্স এর মত জনপ্রিয় প্রোডাক্টগুলো রিব্র্যান্ড করে মাইক্রোসফট ওএস বা মাইক্রোসফট বক্স রাখবেনা মাইক্রোসফট, তা এক ধরনের আশা করাই যায়। যদিও, মাইক্রোসফট অফিস এর মত এতো জনপ্রিয় একটি সফটওয়্যার স্যুট এর নাম যেখানে পরিবর্তন করা হচ্ছে, সেখানে হলফ করে কিছু বলা যাচ্ছেনা!

Add Comment