আইফোন থেকে বাদ যাচ্ছে চার্জিং পোর্ট?

আইফোন থেকে বাদ যাচ্ছে চার্জিং পোর্ট

অনেক জল্পনাকল্পনা ও আইনি ব্যবস্থার পর অবশেষে এক নতুন আইন প্রণয়নে সক্ষম হয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, আর এই নিয়ম হলো ইউনিভার্সাল চার্জিং পোর্ট। সেখানে সকল স্মার্টফোন এর জন্য চার্জিং পোর্ট হিসেবে একই ইউএসবি-সি পোর্ট ব্যবহারের নিয়ম চালু করবে কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে অধিকাংশ স্মার্টফোন কোম্পানি ইতিমধ্যে তাদের ফোনে ইউএসবি-সি পোর্ট ব্যবহার করছে, তবে অ্যাপল এই ক্ষেত্রে ব্যাতিক্রম। অ্যাপল এর ফোনগুলোতে ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট এর পরিবর্তে লাইটেনিং পোর্ট দেখা যায়৷ আর ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এর নতুন সিদ্ধান্ত অ্যাপল এর উপর বিশাল প্রভাব ফেলবে, বিশেষ করে ইউরোপের বাজারে তাদের পরবর্তী স্মার্টফোন লাইন-আপে এই পরিবর্তন আনা অত্যাবশ্যক হবে।

ইউএসবি টাইপ-সি আইফোন ও অন্যান্য

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এর নতুন আইন অনুসারে, Autumn 2024 থেকে বিক্রিত সকল নতুন পোর্টেবল ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসে ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট থাকা অত্যাবশ্যক। অনেক সূত্র থেকে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে আসছে বছরের আইফোন ১৫ সিরিজে প্রথম দেখা যেতে পারে ইউএসবি টাইপ-সি। তবে ইউএসবি টাইপ-সি আইফোনেও আসলেও তা থাকবে অল্প সময়ের জন্য, অদূর ভবিষ্যতে অ্যাপল পোর্টলেস আইফোন আনবে এমনটিই শোনা যাচ্ছে।

তবে তাদের ডিভাইসগুলোতে পরিবর্তন আনার জন্য অ্যাপল এর হাতে এখনো এক বছরের অধিক সময় আছে। বর্তমানে বেস আইপ্যাড মডেলে লাইটেনিং পোর্ট রয়েছে, যা এই বছরের শেষের দিকে ইউএসবি টাইপ-সি তে পরিবর্তিত করা হবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। আর এই পরিবর্তন এর মাধ্যমে পরবর্তী বছর মুক্তি পেতে যাওয়া আইফোন ১৫ সিরিজে ইউএসবি টাইপ-সি এর দেখা মিলবে বলা ধারণা করা যায়।

এছাড়া অ্যাপল এর অন্যান্য ডিভাইসেও লাইটেনিং পোর্ট রয়েছে। এয়ারপডস সহ ম্যাজিক মাউস, কিবোর্ড, ট্র‍্যাকপ্যাড, ইত্যাদি অ্যাপল ডিভাইসও লাইটেনিং পোর্ট ব্যবহার করে। তবে খুব শীঘ্রই এসব ডিভাইসের চার্জিং পোর্ট ইউএসবি টাইপ-সি তে পরিবর্তিত হবে বলে আশা করা যায়।

পোর্টলেস আইফোন ও মেগসেইফ

বলে রাখা ভালো যে ওয়্যারলেস চার্জিং এর ডিভাইসগুলো কিন্তু ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এর উল্লেখিত নিয়ম এর অধীনে পড়েনা। তবে আপাতত অ্যাপল আইফোনকে ওয়্যারলেস চার্জিং ডিভাইসে রুপান্তর করবেনা। তবে বেশিদিনের জন্য ইউএসবি টাইপ-সি আইফোন এর সঙ্গী হবেনা বলে ধরে নেওয়া যায়। বিশ্লেষকেদের মতে, অদূর ভবিষ্যতে অ্যাপল এর পরিকল্পনা হলো আইফোনকে সম্পূর্ণ পোর্টলেস ডিভাইসের রুপ দেওয়া।

তাই এই কথা বলাই যায় যে অ্যাপল কয়েক বছরের মধ্যে তাদের ডিভাইসগুলো থেকে ওয়্যারড চার্জিং বাদ দিয়ে পোর্টলেস ডিভাইস তৈরীর পথে হাটতে পারে। আর এই পরিকল্পনার ফসল হবে পোর্টলেস আইফোন, যা অ্যাপল এর মেগসেইফ চার্জার দ্বারা চার্জ হবে।

বিশেষজ্ঞ প্রদত্ত তথ্যমতে তাদের ডিভাইসে ইউএসবি টাইপ-সি ব্যবহারের বিষয়টি নিয়ে মোটেই খুশি নয় অ্যাপল। সাধারণ ধারণার কখনোই ফ্যান ছিলোনা অ্যাপল, তাই সবসময় নতুন কিছু প্রযুক্তি বিশ্বে যোগ করার চেষ্টা করে অ্যাপল। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া আইফোন ১৪ প্রো মডেলে আমরা ৪৮মেগাপিক্সেল ছবি তোলার ফিচার যোগ হতে দেখেছি, আরো এসেছে 4K ProRES ভিডিও রেকর্ড এর সুবিধা।

যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে যেসব আইফোন ১৪ সিরিজের ফোন বিক্রি হবে সেগুলোতে শুধুমাত্র ইসিম চলবে। সাধারণ সিম কার্ডের সাপোর্ট সেসব ডিভাইসে নেই। এভাবেই ধীরে ধীরে পুরাতন প্রযুক্তি বাদ দিয়ে নতুন কিছু আনে অ্যাপল। ইউএসবি ২.০ লাইটেনিং কেবল দ্বারা কম্পিউটারে ফাইল ট্রান্সফার করা বেশ ঝামেলার একটি বিষয়। তবে আপাতত অনেক বিকল্ল পদ্ধতি রয়েছে। আইফোন যদি পোর্টলেস হয়ে যায় তাহলে এসব উপায় আর কিন্তু থাকবেনা।

অ্যাপল যদি সম্পূর্ণ ওয়্যারলেস আইফোন বাজারে নিয়ে আসে, তবে এটি নিশ্চিত করে বলা যায় অন্যান্য স্মার্টফোন ম্যানুফ্যাকচারারও তাদের ওয়্যারলেস ফোন বাজারে নিয়ে আসবে। অ্যাপলকে অনুসরণ করার এই প্রবণতা আমরা বিভিন্ন স্মার্টফোন ম্যানুফ্যাকচারার এর মধ্যে দেখতে পাই।

আইফোন ১৫ সিরিজ নিয়ে যত গুঞ্জন

এই কয়দিন আগেই মুক্তি পেয়েছে আইফোন ১৪ সিরিজ, তবে এর মধ্যেই আইফোন ১৫ সিরিজ নিয়ে প্রচুর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে পরের বছরের আইফোন ১৫ প্রো ম্যাক্স এর পরিবর্তে এর নাম রাখা হবে আইফোন ১৫ আলট্রা। আবার কিছু গুঞ্জন তো এমনও দাবি করছে যে আইফোন ১৫ সিরিজে টাচ আইডি ফেরত আসতে পারে।

তবে উল্লেখিত সকল তথ্য কিন্তু বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত গুঞ্জন মাত্র, তাই এসব ফিচার ও পরিবর্তন আসলেই নতুন আইফোন ১৫ সিরিজে আসবে কিনা তা সময়ই বলে দিবে।

Add Comment